রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪, ১২:৪৭ পূর্বাহ্ন

লক্ষ্মীপুরে ইজারাকৃত বাজারের দখল বুঝিয়ে না দেওয়ার অভিযোগ

রিপোটারের নাম / ৩৯৩ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশের সময় : বুধবার, ৯ আগস্ট, ২০২৩

নিজস্ব প্রতিনিধি: ২০২৩-২৪ অর্থবছরে লক্ষ্মীপুর পৌরসভার হাটবাজার ইজারা নিয়ে সাড়ে ৩ মাসেও খাজনা আদায় করতে পারছে না ইজারাদার। বাজার বুঝিয়ে না দেওয়ায় টোল উত্তোলন থেকে বিরত থাকার কারণে প্রচুর লোকশানের মুখে পরবেন বলে জানায় ইজারাদার। নিরুপায় হয়ে ইজারাদার মনিরুজ্জামান পাটোয়ারী হাটবাজারের দখল বাজার বুঝে পেতে জেলা প্রশাসক বরাবর লিখিত আবেদন করেন। সচিব আলাউদ্দিনের কারসাজির কারনে ইজারাদার বাজার বুঝে পাচ্ছেন না বলে মন্তব্য করেন সুধীজন।
জানা যায়, লক্ষ্মীপুর পৌরসভা ১৪৩০ সনের ১ বৈশাখ ( ১৪ এপ্রিল ২০২৩) থেকে ৩০ চৈত্র পর্যন্ত এক বছরের জন্য হাটবাজার ইজারা দেওয়ার জন্য ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৩ তারিখে দরপত্র আহ্বান করে। দরপত্রে অংশগ্রহন করে তরকারি বাজার, ট্রাক ও মালবাহী গাড়ি, মোরগ বাজার, দুধ বাজার ও সুপারী বাজার সর্ব্বোচ্চ ইজারাদার নির্বাচিত হয় মনিরুজ্জামান। ইজারার শর্ত অনুযায়ী ইজারা মূল্যের সাথে ভ্যাট, আয়কর ও জামানত বাবত লক্ষ্মীপুর এনআরবিসি ব্যাংক পে-অর্ডার মাধ্যমে ৭২ লাখ ৩৩ হাজার ৬ শত টাকা মেয়র বরাবর পরিশোধ করে ১২ এপ্রিল ২০২৩ তারিখ পৌরসভার সাথে ইজারা চুক্তি হয়। চুক্তিনামার পর দখলনামার সাথে টোল আদায়ের হারে তালিকা সরবরাহ করার কথা। ইজারা সংক্রান্ত যাবতীয় কার্যাবলী পরিচালনার জন্য হাটবাজার ইজারা নীতিমালা অনুযায়ী লক্ষ্মীপুর পৌরসভা একটি হাটবাজার ব্যবস্থাপনা কমিটি থাকবে। কমিটির সভাপতি মেয়র, জেলা প্রশাসকের একজন প্রতিনিধি, সকল নির্বাচিত কাউন্সিলর সদস্য সহ মোট ২৭ জন থাকবেন কমিটির সদস্য। এই কমিটি হাটবাজার তদারকি ও টোল আদায় সংক্রান্ত যাবতীয় কাজ তদারকি করবে। কিন্তু সাড়ে তিন মাস পার হয়ে গেলও ইজারাদারকে হাটবাজারের দখল বুঝিয়ে না দেওয়ায় টোল আদায় করা সম্ভব হচ্ছে না।
মনিরুজ্জামান অভিযোগ করেন, দখলনামা বুঝিয়া পাইতে পৌরসভা কার্যালয়ে যোগাযোগ করায় মেয়র পৌরসভার সচিব আলাউদ্দিন কে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে বলেন। পরবর্তীতে সচিব দখল বুঝিয়ে দিবেন মর্মে একাধিক বার তারিখ দিয়ে নানা রকম টালবাহানা করায় বিগত ২৬/৬/২০২৩ তারিখে হাটবাজারের দখল বুঝিয়ে পেতে জেলা প্রশাসক বরাবর লিখিত আবেদন করে। আবেদনের প্রেক্ষিতে গত ১০/৭/২০২৩ তারিখে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের স্থানীয় সরকার বিভাগ ইজারা নীতিমালা অনুযায়ী হাটবাজারের দখল বুঝিয়ে দিয়ে টোল আদায়ের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে মেয়র, লক্ষ্মীপুর পৌরসভা কে নির্দেশনা প্রদান করেন।

ইজারা গ্রহীতা মনিরুজ্জামান পাটোয়ারী জানান, ইজারাদার মনোনীত হওয়ায় পর ১২ এপ্রিল ২০২৩ তারিখ পৌর মেয়রের সাথে ৫টি বাজারের আলাদা আলাদা কিছু শর্তসাপেক্ষে ইজারা চুক্তি হয়। চুক্তি অনুযায়ী পৌরসভা আমাকে বাজার বুঝিয়ে দিবে এবং আমি ১৪ এপ্রিল থেকে খাজনা নেওয়ার কথা। কিন্তু অদ্যবধি বাজার দখল বুঝিয়ে না দেওয়ায় পাশাপাশি চুক্তি পত্রে বাজারের নাম স্থান, জমির পরিমান ও দাগ নাম্বার উল্লেখ না থাকায় খাজনা আদায় সম্ভব হচ্ছে না। যার কারনে আমি জেলা প্রশাসক বরাবর আবেদন করি।

সরেজমিনে দেখা যায়, পৌর কিচেন মার্কেটের মোরগ ব্যবসায়ীরা এবছর এখন পর্যন্ত কোন টোল প্রদান করেন নাই।

সুপারী ব্যবসায়ী জানান, নিদির্ষ্ট কোন বাজার নাই। শুধু মাত্র মৌসুমের সময় উত্তর তেমুহনী কাঁচা সুপারী বিক্রি হয়।
পৌর বাজারে শুকনা সুপারী ব্যবসায়ীরা জানান, দোকানে বসে ক্রয় বিক্রয়ের খাজনা কিসের।

তরকারি বাজার ব্যবসায়ী সমিতি জানান, বিগত কয়েক বছর মেয়রের মাধ্যমে ইজারাদারকে এককালীন টোল দিতাম। সে মোতাবেক মনির পাটোয়ারী এক সপ্তাহের মধ্যে টোল দিতে বলেন। কিন্তু সবাই টোল না দেওয়ায় মনির টোল তোলা বন্ধ রাখতে বলেন।

পৌর মেয়র মোজাম্মেল হায়দার মাসুম জানান, ইজারাদারের সাথে চুক্তি হয়েছে। আর ইজারার বিষয়ে জেলা প্রশাসকের কোন চিঠি পাননি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ